সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ১০:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
মধুপুরের মহিষমারা নেদুর বাজারে চক্ষু ক্যাম্প অনুষ্ঠিত উপকূলে জলোচ্ছ্বাস, সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সংকেত বন্ধুর মাথায় ডিম ভেঙে জন্মদিন পালন, আটক ৬ পণ্যর দাম বৃদ্ধিতে আন্দোলন করলে গ্রেফতার না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ঘুষ নেয়ার দায়ে টেকনাফে স্কুল শিক্ষক দায়িত্ব থেকে বহিষ্কার! ছাত্রের মাকে হত্যায় জড়িতদের শাস্তির দাবিতে সড়কে শিক্ষার্থীরা জ্বালানি তেল, গ্যাস,বিদ্যুৎ, সারসহ নৃত্য প্রয়োজনে দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল। মাদারীপুরের কালকিনীতে যুবকের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার। বিপুল পরিমাণ চোলাই মদসহ নারী আটক জ্বালানি তেল ও সারের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ

আইটি পণ্য সরবরাহ বিধিনিষেধের আওতার বাইরে রাখার নির্দেশ

তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে জরুরি সেবা খাতের আওতায় আনা হয়েছে জানিয়ে চলমান বিধিনিষেধে কম্পিউটার হার্ডওয়্যার পণ্য সরবরাহে বাধা না দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়।

কোনো কম্পিউটার হার্ডওয়ারের সমস্যা হলে তা সমাধানের জন্য বিভিন্ন জায়গায় যাওয়া ব্যক্তিদের পরিচয়পত্র পরীক্ষা করে চলাচলের অনুমতি দেয়ার নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে।

বুধবার (৪ জুলাই) ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘এ সংক্রান্ত একটি সিদ্ধান্ত মন্ত্রিসভায় হয়েছিল। বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির দাবির প্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। কিন্তু কখনো কখনো এটি মানা হচ্ছিল না। তাই ৩ আগস্ট সংশ্লিষ্টদের কাছে আবার চিঠি দেয়া হয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে জরুরি সেবা খাতের আওতায় এনে লকডাউন চলাকালীন সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে কম্পিউটার হার্ডওয়্যারসহ আইটি পণ্য সরবরাহ এবং সল্যুশন প্রদানের অনুমতি দেয়া হয়েছে।’

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ইসরাত জাহান স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত চিঠি থেকে জানা যায়, চিঠিটি ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার, সব জেলা প্রশাসক এবং ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার বরাবর পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, কোভিড-১৯-এর প্রাদুর্ভাবে বিধিনিষেধ চলকালীন যোগাযোগ, স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা, খাদ্য, শিক্ষা, গণমাধ্যমসহ এসব খাতকে সচল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে তথ্যপ্রযুক্তি খাত। অধিকাংশ প্রতিষ্ঠান অনলাইনে ভিডিও কনফারেন্সিং-এর মাধ্যমে অফিসিয়াল কার্যক্রম পরিচালনা অব্যাহত রাখছে।

জনগুরুত্বপূর্ণ এ কার্যক্রমগুলো সচল রাখতে তথ্যপ্রযুক্তির সব সেবা অনলাইনে দেয়ার সুযোগ নেই। বর্ণিত সেবা কার্যক্রম সক্রিয় রাখার জন্য তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে জরুরি সেবা হিসেবে গণ্য করে হার্ডওয়্যার সরবরাহকারী এবং সল্যুশন প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানে কর্মরত জনবলকে চলাচলের সুযোগ নিশ্চিত করা প্রয়োজন।

এমতাবস্থায়, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানসমূহের সার্ভিসগুলো চালু রাখতে কম্পিউটার হার্ডওয়্যার পণ্য সরবরাহ এবং সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে জরুরি সেবা প্রদানকারী হিসেবে বিবেচনা করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রাতিষ্ঠানিক পরিচয়পত্র প্রদর্শন সাপেক্ষে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোতে কর্মরত জনবলের চলাচলের অনুমতি প্রদানের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।



আমাদের ফেসবুক পেজ
ব্রেকিং নিউজ