রবিবার, ১২ জুন ২০২২, ০৫:২১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
কোনোদিন কারও কাছে মাথানত করিনি:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভোলা চরফ্যাশনে শিশু ইসানকে পানিতে ফেলে হত্যার অভিযোগ আদালতের অনুমতি নিয়ে বিদেশ যেতে পারবেন খালেদা জিয়া:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চীফ হুইপের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্যক্রম উদ্বোধন ও নদী ভাঙ্গন কবলিত পরিবারের মাঝে চেক বিতরণ। উলানিয়া বন্দরে ইজারাদারের বিরুদ্ধে জোর জলুমের অভিযোগ, ব্যাবসায়ীরা হুমকির পথে ভোলা চরফ্যাশনে শশীভুশন থানাধীন বিশ্ব নবীকে কে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ গলাচিপায় এ কেমন শত্রুতা, গৃহপালিত প্রাণী গরু কুপিয়ে জখম ! বরিশালে লাভ ফর ফ্রেন্ডস এর উদ্দ্যাগে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত ডিবিসি নিউজের সংবাদকর্মীআব্দুল বারীকে নির্মমভাবে হত্যার প্রতিবাদে সিরাজগঞ্জে মানববন্ধন

করোনায় মৃত নারীকে গোসল দিতে কেউ এগিয়ে না আসায় গোসল দিলেন ইউএনও

 

আহসান হাবীব
স্টাফ রিপোর্টারঃ

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার পল্লী অঞ্চলের রিনা বেগম (৫৫) নামে এক নারী করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান। কিন্তু করোনায় মৃত্যু হওয়ায় তাকে গোসল ও কাফনের কাপড় পড়াতে কেউ এগিয়ে যায়নি। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাদিয়া আফরিন মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টায় ওই নারীকে দাফনের জন্য গোসল করান ও কাফনের কাপড় পরান।
জানা যায়, উপজেলার কুশাহাটা গ্রামের রিনা বেগম ও তার স্বামী মোতালেব হোসেন প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে বাড়িতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত মঙ্গলবার রিনা বেগমের অবস্থা গুরতর হওয়ায় পরিবারের সদস্যরা তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৩টায় তার মৃত্যু হয়।
এরপর মৃত রিনা বেগমকে গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। মুসলিম নারীকে মৃত্যুর পর ধর্মীয় নিয়ম অনুসারে গোসল ও কাফনের কাপড় পরাতে হবে। কিন্তু কেউ এতে রাজি হচ্ছিল না।
খবরটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাদিয়া আফরিন জানতে পারেন। তিনি দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে রিনা বেগমকে গোসল করান। পরে জানাজা শেষে তাকে দাফন করা হয়। জানাজায় ১৫ জন লোক অংশগ্রহণ করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন সোনাতলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল করিম রেজা, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) কামাল হোসেন ও জোড়গাচা ইউপি চেয়ারম্যান রোস্তম আলী মন্ডল।
সোনাতলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন বলেন, আমি স্থানীয়দের মাধ্যমে জানতে পারি করোনায় মৃত এক নারীকে কেউ দাফনের জন্য গোসল ও কাফনের কাপড় পরাতে রাজি হচ্ছে না। ওই নারীর কোনো সন্তানও নেই। তখন আমি সেখানে গিয়ে গোসল করিয়ে কাফনের কাপড় পরিয়ে দেই। এটা আমার মানবিক দায়িত্ব।



আমাদের ফেসবুক পেজ
ব্রেকিং নিউজ