শনিবার, ১৮ জুন ২০২২, ০৭:৫২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
রাত আটটার পর সারা দেশে দোকান, শপিংমল, , কাঁচা বাজার খোলা না রাখার নির্দেশ পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে মাদারীপুরে প্রেস ব্রিফিং অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে ভয়াবহ বন্যার কবলে পুরো সিলেটবাসী। ৯ ঘন্টা পর আদমজী ইপিজেডের আগুন নিয়ন্ত্রণে পাঁচ গ্রামের এক মাত্র ভরষা, সংস্কারের অভাবে জনজীবন বিপর্যয় ! সাংবাদিক সুরক্ষা আইন প্রণয়ন সময়ের দাবি;ঝালকাঠিতে মানববন্ধনে নেতৃবৃন্দ কালকিনিতে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে হামলায় ১০টি বসতবাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ পদ্মা সেতুতে গাড়ি নিয়ে প্রতিযোগিতা না করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর সাংবাদিক নোমানীর ওপর হামলার প্রতিবাদে বরিশালে মানববন্ধন গলাচিপা কৃষি আবহাওয়া তথ্য সেবা বিষয়ক রোভিং সেমিনার

কোনোদিন কারও কাছে মাথানত করিনি:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এক এগারোর সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার জনগণের আন্দোলন ও চাপে বাধ্য হয়ে আমাকে মুক্তি দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, কোনোদিন কারও কাছে মাথানত করিনি, জীবনও ভিক্ষা চাইনি।

শনিবার (১১ জুন) আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে দলীয় নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে যান। এ সময় সেখানে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে দেওয়া বক্তব্যে শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, যতবার গ্রেফতার হয়েছি, ততবারই নেতাকর্মীদের চিঠি দিয়েছি। চিঠির মাধ্যমে নেতাকর্মীদের নির্দেশনা দিয়েছি। দেশবাসীকে চিঠি দিয়েছি। আওয়ামী লীগের সাধারণ নেতাকর্মীরা সবসময় ঠিক থাকে। এটা বাবার সময়ও দেখেছি।

তিনি আরও বলেন, দেশে ফেরার পর ৮৩ সালে অ্যারেস্ট (গ্রেফতার) করা হয়। ডিজিএফআই অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়। কারও কাছে কোনোদিন মাথানত করিনি, জীবন ভিক্ষাও চাইনি। আমি পরিবার থেকে, বাবার কাছ থেকে এটা শিখেছি- যে কারও কাছে, কোনো অন্যায়ের কাছে মাথানত করব না।

আওয়ামী লীগকে সবসময় উজানে নাও ঠেলে চলতে হয়েছে দাবি করে শেখ হাসিনা বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার অবাক হয় যে ১৫ দিনে আমার মুক্তির জন্য ২৫ লাখ স্বাক্ষর সংগ্রহ করা হয়। এটাই আওয়ামী লীগ। জনগণই হলো আমাদের শক্তি। বিএনপির ক্ষেত্রে জন্মই হলো আজন্ম পাপ। জনগণ বিএনপির শক্তি নয়।

সরকারপ্রধান দাবি করেন, জেলে বসে দেশ কীভাবে চালাব, দল কীভাবে চালাব, সেসব লিখে রেখেছিলাম। কীভাবে উন্নয়ন করব সেসব পরিকল্পনা লিখে রাখি। আজ প্রতি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ।

বাজেট প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা একটা বাজেট দিয়েছি। উন্নত দেশে জিডিপি মাইনাসে, আমরা ৫ ভাগের ওপরে রেখেছি। কিছু মানুষ অর্জনকে অর্জন হিসেবে নিতে পারে না। কেন তাদের এই দৈন্য? বিনা পয়সায় টিকা দিয়েছি। বিনা পয়সায় যাদের ভ্যাকসিন দিয়ে তরতাজা করেছি, তারাই এখন সমালোচনা করছে।

জনমানুষের কল্যাণ আমরা বুঝি জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আন্তর্জাতিকভাবে এত বাধা, তবুও নিজেদের অর্থে পদ্মা সেতু করেছি। জাতির পিতা দেশ স্বাধীন করেছেন। এ স্বাধীনতা বৃথা যেতে পারে না। আমরা আমাদের কাজ করে যাব। সাধারণ মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করে যাব, যে যাই বলুক।

আরও পড়ুন : অনেক কঠিন সময় পার করতে হবে : অর্থমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী মনে করেন, প্রজন্মের পর প্রজন্ম যেন সুফল পায় সে ব্যবস্থা করে দিয়েছি। ১০০ বছর মেয়াদি পরিকল্পনা করেছি।



আমাদের ফেসবুক পেজ
ব্রেকিং নিউজ