রবিবার, ১২ জুন ২০২২, ০৩:৩০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
আদালতের অনুমতি নিয়ে বিদেশ যেতে পারবেন খালেদা জিয়া:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চীফ হুইপের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্যক্রম উদ্বোধন ও নদী ভাঙ্গন কবলিত পরিবারের মাঝে চেক বিতরণ। উলানিয়া বন্দরে ইজারাদারের বিরুদ্ধে জোর জলুমের অভিযোগ, ব্যাবসায়ীরা হুমকির পথে ভোলা চরফ্যাশনে শশীভুশন থানাধীন বিশ্ব নবীকে কে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ গলাচিপায় এ কেমন শত্রুতা, গৃহপালিত প্রাণী গরু কুপিয়ে জখম ! বরিশালে লাভ ফর ফ্রেন্ডস এর উদ্দ্যাগে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত ডিবিসি নিউজের সংবাদকর্মীআব্দুল বারীকে নির্মমভাবে হত্যার প্রতিবাদে সিরাজগঞ্জে মানববন্ধন করোনা শনাক্ত দেশে বাড়ছে দশমিনা চরবোরহানে ভোটারদের বাড়ি ঘরে গভীর রাতে হামলার অভিযোগ, নেই কোন প্রতিকার !

পরিক্ষার এসাইন্টমেন্ট জমার সাথে টাকা নেওয়ার অভিযোগ

মিঠুন পাল জেলা প্রতিনিধি, পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার আলিপুরা ইউনিয়নের এবিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে পরিক্ষার এসাইন্টমেন্ট জমা দেয়ার সাথে অর্থ নেয়ার অভিযোগ উঠেছে ।

শিক্ষার্থীদের কাছে থেকে জানা যায় ২০২১ইং শিক্ষা বছরের এসএসএসি শিক্ষার্থীরা জানান, সরকারী আইনকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে চলমান করোনার মাহামারীর সময়ে
এবিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ শহিদুল স্যার, সহকারী শিক্ষক ইদ্রিস স্যার চলতি বছরের পরিক্ষার এসাইন্টমেন্ট জমার নেয়ার সাথে অর্থ দিতে বাধ্য করছেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্তৃপক্ষ।

তারা আরো জানান, কম্পিউটার কম্পোজ, অফিস খরচ এবং শিক্ষকদের বেতন হিসেবে প্রতি সাবজেক্টে ৪’শত টাকা নিচ্ছে। যা বর্তমান করোনাকালীন সময়ে অভিভাবকদের প্রতি অতিরিক্ত জুলুম এবং অবিচার করা হচ্ছে বলে অভিভাবক বৃন্দরা জানান জানান।

এমনিতেই শিক্ষা ব্যাবস্থা ভেংঙ্গে পরেছে, তার উপর এবিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ঘাড়েচাপানো অর্থ আদায় অভিভাবকদের ফেলে দিয়েছে নানা দূশ্চিন্তায়।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ সহিদুল ইসলাম এর কাছে এসাইন্টমেন্ট এর সাথে অর্থ নেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে, তিনি টাকা নেয়ার বিষয়টি ধামাচাপা এবং সংবাদ প্রকাশ না করার জন্য ব্যর্থ চেষ্টা করেন।

এদিকে এবিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এর আপন ভাই এবং এ্যডহক কমিটির সভাপতি মোঃ সাঈফুল ইসলাম মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি এবিষয়ে প্রথমে কিছুই জানেননা বল্লেও, পরে তিনি শিক্ষার্থীদের টাকা ফেরৎ দেয়ার কথা স্বাীকার করলেও, তিনি তা করেননি। পূনরায় বড় ভাই সভাপতি হওয়ায়, প্রভাব খাটিয়ে সরকারের আইনকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে পূজি করে অধিক অর্থ হাতিয়ে আঙ্গুল ফুল্লেও “শিক্ষা ব্যাবস্থাকে ধ্বংস করার পায়তারা করছে এবিসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ।

এবিষয়ে দশমিনা উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ সেলিম মিয়া এবং গলাচিপা উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে, তারা বলেন, পরিক্ষার এ্যইন্টমেন্ট জমা নেয়ার সাথে টাকা না নেয়ার বিষয়ে সরকারি কঠোর বিধিনিশেধ রয়েছ। অভিযোগ পেলে ঐ বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে আইনি ব্যাবস্থা নেয়া যেতে পারে।



আমাদের ফেসবুক পেজ
ব্রেকিং নিউজ