বৃহস্পতিবার, ০৯ জুন ২০২২, ১১:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
৭ টাকা বাড়ল সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ইসলামের নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) কে অবমাননাকর বক্তব্যের প্রতিবাদে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ গলাচিপায় দুই বরযাত্রীর মাথা কামানোর ঘটনায় ইউপি সদস্যসহ তিন জনের বিরুদ্ধে মামলা ! দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১৩ রুটের বাস ভাড়া নির্ধারণ শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল বন্ধ স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে ছাত্রীকে জোরপূর্বক তুলে নেওয়ার অভিযোগ মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)কে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে মাদারীপুরে মানববন্ধন। স্ত্রীকে কুপিয়ে যখম করার মামলায় স্বামীকে জেল হাজতে পাঠালো আদালত। অবৈধ বালু উত্তোলনের দায়ে তিনজনকে সাত দিনের কারাদণ্ড রাজধানীতে গণমাধ্যমকর্মীর লাশ উদ্ধার

মাকে বেঁধে মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে কলেজ ছাত্রীকে বিয়ের অভিযোগ

মাকে দড়ি দিয়ে বেঁধে রেখে মেয়ের মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে জোরপূর্বক কাবিন নামায় স্বাক্ষর করিয়ে বিয়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে কুষ্টিয়ার কুমারখালীর উপজেলায় এ ঘটনা ঘটেছে। ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী কুষ্টিয়ার একটি কলেজ থেকে এ বছর অনার্স শেষ করেছেন।

অভিযুক্ত ছেলের নাম তিতাশ (৪০)। তিনি উপজেলার পান্টি এলাকার মৃত ইব্রাহিম বিশ্বাসের নাতি এবং বরিশাল জেলার বাসিন্দা। তিতাশ নানার বাড়িতে থাকেন। নাতির বিস্তারিত পরিচয় জানতে চাইলে অপারগতা প্রকাশ করে নানার বাড়ির লোকজন।

আজ বুধবার সকালে সরেজমিন গেলে ভুক্তভোগী কলেজছাত্রীর মা বলেন, ‘স্থানীয় ব্যবসায়ী রোমান ও লাহোরী সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে তিতাশসহ বেশ কয়েকজনকে নিয়ে পাকা ও দেয়ালে ঘেরা বাড়ির পেছন দরজা দিয়ে প্রবেশ করে। এ সময় তাঁদের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র, দা, ডাসা, দড়ি ছিল। তাঁরা এসেই আমাকে বলে, ‘‘তোঁর মেয়েকে তিতাশের সাথে বিয়ে দিতে হবে। না হলে মেরে ফেলা হবে।’’ বিয়েতে রাজি না হলে ওরা প্রথমে আমাকে দড়ি দিয়ে বেঁধে মেয়ের কক্ষে নিয়ে যায়। পরে মেয়ের মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে কাবিন নামায় স্বাক্ষর করিয়ে নেয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ বিয়ে আমরা মানি না। থানায় মামলা করা হবে। আমরা খুব ভয়ে আছি।’

ওই কলেজ ছাত্রী বলেন, ‘প্রায় ৬ বছর আগে থেকে তিতাশ আমাকে বিয়ের কথা বলে আসছে। গতকাল রাতে হঠাৎ সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে এসে বিয়ের কথা বলে। মাকে বেঁধে রেখে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। একপর্যায়ে মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে হত্যার হুমকি দেয়। পরে ভয়ে কাবিননামায় স্বাক্ষর করেছি। স্বাক্ষর করা হলে রাত দেড়টার দিকে ওরা চলে যায়।’

ওই বাড়ির ভাড়াটিয়া রায়হান উদ্দিন বলেন, ‘দোকান বন্ধ করে ১০ টার দিকে বাসায় ফিরি। সেসময় রোমান, লাহোরীসহ কয়েকজন আমাকে ডাক দেয়। বাইরে আসা মাত্রই মোবাইল কেড়ে নিয়ে এক রুমে আটকে রাখে। পরে জানতে পারি অস্ত্র ঠেকিয়ে বিয়ে করে চলে গেছে।’

এ বিষয়ে জানতে রোমান ও লাহোরীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পান্টি এলাকার পপি সুপার মার্কেটে যাওয়া হয়। সেখানে গিয়ে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ পাওয়া যায়। পরে তাঁদের মোবাইলে কল দেওয়া হলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। অভিযুক্ত তিতাশকে কল করা হলে তাঁর ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যায়।

এ নিয়ে কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়েছিল। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



আমাদের ফেসবুক পেজ
ব্রেকিং নিউজ