ঢাকা ০৪:৩০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইউএনওর একউদ্যোগেই পাল্টে গেল ডাসার উপজেলার মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোর পরীক্ষার ফলাফল।

শরীফ শাওন ডাসার, মাদারীপুর।
  • আপডেট সময় : ০৮:১৪:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ অগাস্ট ২০২৩ ১০৩ বার পড়া হয়েছে
সময়কাল এর সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
গত ৩০ এপ্রিল শুরু হওয়া এস এস সি-২৩ পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হয় ২৭ জুলাই এই পরীক্ষায় ডাসারে ১৪ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ফলাফল পর্যালোচনা করলে দেখা যায় ফলাফলে এক অভাবনীয় সাফল্য। গত বছর ডাসার উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ফলাফলে পর্যালোচকনা রতে গেলে ডি. কে. আইডিয়াল সৈয়দ আতাহার আলী স্কুলের ২০২২ সালের গড় পাশের হার ছিলো ৮০.২৫% শতাংশ কিন্তু এবছর(২০২৩ সালে) ডি. কে. আইডিয়াল সৈয়দ আতাহার আলী একাডেমী স্কুলের ফলাফল গড় পাশের হার গিয়ে দাঁড়ায় ৯৫.৮৫% শতাংশ বাড়ার পাশাপাশি জিপিএ-৫ এর সংখ্যাও বেড়েছে ২০২২ সালে জিপিএ-৫ এর সংখ্যা ছিলো শূন্য(০০) কিন্তু ২০২৩ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছে-০৪ টি। এই সাফল্যের মূলে রয়েছে অন্য একটি ঘটনা ২০২২ সালের ১৪ জুলাই ডাসার উপজেলায় যোগদান করেন নবগঠিত উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব সারমীন ইয়াছমীন তিনি যোগদান করেই দেখতে পান ডাসার উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের পড়াশুনার মান অগোছালো হয়ে পড়েছে তিনি উদ্যেগ নিলেন যে নির্বাচনী পরীক্ষায় যারা কৃতকার্য হবেন তাদের উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর নিজ উদ্যোগে মডেল টেষ্ট পরিক্ষা দিতে,এই কথা শুনে ছাত্র/ ছাত্রীরা পড়াশুনায় গভীর মনোযোগ দিলেন এবং তারই ফল এখন দৃশ্যমান। ডি. কে. আইডিয়াল সৈয়দ আতাহার আলী একাডেমি স্কুলের ছাত্রী সৈয়দা মুনিয়ার পিতা সৈয়দ ওয়াহিদুজ্জামান ওয়াহিদ বলেন, আমার যতটা ধারনা সেন্টার পরীক্ষার আগে ইউএনও মহোদয়ের উদ্যোগে যে মডেল টেষ্ট পরীক্ষা নেওয়া হয় তা ছিলো আমার মেয়ে সহ অন্যান্য পরীক্ষার্থীদের বারতি প্রেরণা তাই এই ভালো ফলাফলের জন্য সকল শিক্ষক ও বিশেষ করে ইউএনও মহোদয় কে আন্তরিক অভিনন্দন। শশিকর উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুনিত তালুকদার বলেন, ইউএনও মহোদয়ের যে উদ্যোগ সেটা নিঃসন্দেহে একটি মহৎ ভালো উদ্যােগ ছিলো আমার জানামতে বাংলাদেশের কোন উপজেলায় এই ভাবে কোন পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে কিনা তা আমার জানা নাই। তিনি আরো ধন্যবাদ জানান প্রতিটি বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কারন তাদেরও খুব প্রচেষ্টা ছিলো ছেলে মেয়েদের ভালো রেজাল্ট করানোর জন্য।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

ইউএনওর একউদ্যোগেই পাল্টে গেল ডাসার উপজেলার মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোর পরীক্ষার ফলাফল।

আপডেট সময় : ০৮:১৪:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ অগাস্ট ২০২৩
গত ৩০ এপ্রিল শুরু হওয়া এস এস সি-২৩ পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হয় ২৭ জুলাই এই পরীক্ষায় ডাসারে ১৪ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ফলাফল পর্যালোচনা করলে দেখা যায় ফলাফলে এক অভাবনীয় সাফল্য। গত বছর ডাসার উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ফলাফলে পর্যালোচকনা রতে গেলে ডি. কে. আইডিয়াল সৈয়দ আতাহার আলী স্কুলের ২০২২ সালের গড় পাশের হার ছিলো ৮০.২৫% শতাংশ কিন্তু এবছর(২০২৩ সালে) ডি. কে. আইডিয়াল সৈয়দ আতাহার আলী একাডেমী স্কুলের ফলাফল গড় পাশের হার গিয়ে দাঁড়ায় ৯৫.৮৫% শতাংশ বাড়ার পাশাপাশি জিপিএ-৫ এর সংখ্যাও বেড়েছে ২০২২ সালে জিপিএ-৫ এর সংখ্যা ছিলো শূন্য(০০) কিন্তু ২০২৩ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছে-০৪ টি। এই সাফল্যের মূলে রয়েছে অন্য একটি ঘটনা ২০২২ সালের ১৪ জুলাই ডাসার উপজেলায় যোগদান করেন নবগঠিত উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব সারমীন ইয়াছমীন তিনি যোগদান করেই দেখতে পান ডাসার উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের পড়াশুনার মান অগোছালো হয়ে পড়েছে তিনি উদ্যেগ নিলেন যে নির্বাচনী পরীক্ষায় যারা কৃতকার্য হবেন তাদের উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর নিজ উদ্যোগে মডেল টেষ্ট পরিক্ষা দিতে,এই কথা শুনে ছাত্র/ ছাত্রীরা পড়াশুনায় গভীর মনোযোগ দিলেন এবং তারই ফল এখন দৃশ্যমান। ডি. কে. আইডিয়াল সৈয়দ আতাহার আলী একাডেমি স্কুলের ছাত্রী সৈয়দা মুনিয়ার পিতা সৈয়দ ওয়াহিদুজ্জামান ওয়াহিদ বলেন, আমার যতটা ধারনা সেন্টার পরীক্ষার আগে ইউএনও মহোদয়ের উদ্যোগে যে মডেল টেষ্ট পরীক্ষা নেওয়া হয় তা ছিলো আমার মেয়ে সহ অন্যান্য পরীক্ষার্থীদের বারতি প্রেরণা তাই এই ভালো ফলাফলের জন্য সকল শিক্ষক ও বিশেষ করে ইউএনও মহোদয় কে আন্তরিক অভিনন্দন। শশিকর উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুনিত তালুকদার বলেন, ইউএনও মহোদয়ের যে উদ্যোগ সেটা নিঃসন্দেহে একটি মহৎ ভালো উদ্যােগ ছিলো আমার জানামতে বাংলাদেশের কোন উপজেলায় এই ভাবে কোন পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে কিনা তা আমার জানা নাই। তিনি আরো ধন্যবাদ জানান প্রতিটি বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কারন তাদেরও খুব প্রচেষ্টা ছিলো ছেলে মেয়েদের ভালো রেজাল্ট করানোর জন্য।