ঢাকা ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মাদারীপুরে পাট পন্যের ব্যবহার বৃদ্ধির লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা

মাদারীপুর প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ০৭:৪৪:৫২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২৩ ৫১ বার পড়া হয়েছে
সময়কাল এর সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মাদারীপুরে পাট পন্যের ব্যবহার বৃদ্ধির লক্ষ্য ব্যবসায়ী ও স্টেক হোল্ডারদের নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার সকালে সরকারি সমন্বিত ভবনের হলরুমে এ সভা অনুষ্ঠিত।
জেলা পাট কর্মকর্তা মো.আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাদারীপুর স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক মো.নজরুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ইসমাইল হোসেন, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম মুন্সি, চেম্বার অব কমার্সের সহ সভাপতি বাবুল চন্দ্র দাস, ব্যবসায়ী রাজ্জাক হাওলাদারসহ বিভিন্ন এলাকার ব্যবসায়ীবৃন্দ।
এ সময় বক্তারা বলেন, পাট বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান অর্থকারী ফসল। এক সময় পাটের চাষ ও পাটজাত পণ্যের ব্যবহার প্রচুর থাকলেও বর্তমানে পলিথিনের কারনে তা কমে গেছে অনেক। পলিথিন পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।তাই আমার দেশের পরিবেশ রক্ষায় ও দেশের উৎপাদন বৃদ্ধিতে পাটজাত পণ্যের ব্যবহার বৃদ্ধির বিকল্প নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

মাদারীপুরে পাট পন্যের ব্যবহার বৃদ্ধির লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা

আপডেট সময় : ০৭:৪৪:৫২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২৩

মাদারীপুরে পাট পন্যের ব্যবহার বৃদ্ধির লক্ষ্য ব্যবসায়ী ও স্টেক হোল্ডারদের নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার সকালে সরকারি সমন্বিত ভবনের হলরুমে এ সভা অনুষ্ঠিত।
জেলা পাট কর্মকর্তা মো.আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাদারীপুর স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক মো.নজরুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ইসমাইল হোসেন, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম মুন্সি, চেম্বার অব কমার্সের সহ সভাপতি বাবুল চন্দ্র দাস, ব্যবসায়ী রাজ্জাক হাওলাদারসহ বিভিন্ন এলাকার ব্যবসায়ীবৃন্দ।
এ সময় বক্তারা বলেন, পাট বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান অর্থকারী ফসল। এক সময় পাটের চাষ ও পাটজাত পণ্যের ব্যবহার প্রচুর থাকলেও বর্তমানে পলিথিনের কারনে তা কমে গেছে অনেক। পলিথিন পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।তাই আমার দেশের পরিবেশ রক্ষায় ও দেশের উৎপাদন বৃদ্ধিতে পাটজাত পণ্যের ব্যবহার বৃদ্ধির বিকল্প নেই।