ঢাকা ০৫:১৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুন্সীগঞ্জের টংঙ্গীবাড়ীতে বাড়িতে ঢুকে একই পরিবারের ৫ জনকে কুপিয়ে জখম

 ওসমান গনি মুন্সীগঞ্জ
  • আপডেট সময় : ১১:০৫:৪০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ অগাস্ট ২০২৩ ৯৫ বার পড়া হয়েছে
সময়কাল এর সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মুন্সীগঞ্জের টংঙ্গীবাড়ী উপজেলায় বাড়িতে ঢুকে একই পরিবারের পাঁচজনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়েছে উপজেলার সোনারং গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় বাছেদ শেখ (৭০) ও তার স্ত্রী সেলিনা বেগমকে (৬৫) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে অপর আহত ছেলে আরাফাত শেখ (৩৫) মেয়ে মাকসুদা (২৮) ও শিল্পি বেগমকে (৫০) টংঙ্গীবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। আরাফাত শেখ টংঙ্গীবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। সূত্রে জানা গেছে,সোনারং গ্রামের বাছেদ শেখ তার জমিতে সকালে টিন ও কাঠ দিয়ে ঘর নির্মাণ করছিলেন। ওই ঘর উত্তোলন করতে সকাল ৮টার দিকে বাধা দেয় একই গ্রামের আবু কালাম শেখ,মান্নান শেখ, গিয়াসউদ্দিন শেখ, সুমী আক্তার, আল-আমিন হাওলাদার, সোহেল হাওলাদার, মো: সেন্টু হাওলাদার, বাদশা সেখ, সাইদ সেখসহ আরো চার থেকে পাঁচজন। তারা রামদা, চাপাতি, ছোড়া, লোহার রড দিয়ে হামলা চালিয়ে ওই পরিবারের পাঁচজনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এ সময় বাছেদ সেখের টিন ও কাঠ দিয়ে নির্মিত ঘরের বেড়া টেনে খুলে ফেলে দেয় তারা। বাড়িঘরে ভাঙচুর ও লুটপাটও চালায়। প্রত্যক্ষদর্শী বর্ণা আক্তার সাদিয়া বলেন,আমি আমার খালার বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলাম। সকালে আমার খালু তার জমিতে নতুন একটি ঘর নির্মাণ করিতেছিলেন। এ সময় সোনারং গ্রামের ১৫ থেকে ২০ জন চাপাতি, ছোড়া, লাঠি নিয়ে আমার খালুর বাড়িতে হামলা চালায়। আমার খালু ও খালা খালাত ভাই বোনদের এমনকি আমার মাকেও কুপিয়ে-পিটিয়ে জখম করে। আমার খালা-খালুর অবস্থা গুরুতর। তারা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।’ অপর প্রত্যক্ষদর্শী মো: আবু কালাম বলেন,আমার জীবনে এমন হামলা দেখিনি। বারবার চেষ্টা করেও হামলাকারীদের হাত থেকে ভূক্তভোগী পরিবারটিরকে রক্ষা করতে পারিনি। আমি একাধিক আঘাতের শিকার হয়েও চেষ্টা চালিয়ে যাই, তারপরেও তারা বৃদ্ধ স্বামী-স্ত্রীসহ একই পরিবারের পাঁচজনকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে। পরে তারা ঘণ্টাব্যাপী ওই বাড়িতে ভাঙচুর ও লুটপাট চালিয়েছে। টংঙ্গীবাড়ী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাজিব খান বলেন, এ ঘটনায় অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত চলছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

মুন্সীগঞ্জের টংঙ্গীবাড়ীতে বাড়িতে ঢুকে একই পরিবারের ৫ জনকে কুপিয়ে জখম

আপডেট সময় : ১১:০৫:৪০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ অগাস্ট ২০২৩

মুন্সীগঞ্জের টংঙ্গীবাড়ী উপজেলায় বাড়িতে ঢুকে একই পরিবারের পাঁচজনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়েছে উপজেলার সোনারং গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় বাছেদ শেখ (৭০) ও তার স্ত্রী সেলিনা বেগমকে (৬৫) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে অপর আহত ছেলে আরাফাত শেখ (৩৫) মেয়ে মাকসুদা (২৮) ও শিল্পি বেগমকে (৫০) টংঙ্গীবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। আরাফাত শেখ টংঙ্গীবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। সূত্রে জানা গেছে,সোনারং গ্রামের বাছেদ শেখ তার জমিতে সকালে টিন ও কাঠ দিয়ে ঘর নির্মাণ করছিলেন। ওই ঘর উত্তোলন করতে সকাল ৮টার দিকে বাধা দেয় একই গ্রামের আবু কালাম শেখ,মান্নান শেখ, গিয়াসউদ্দিন শেখ, সুমী আক্তার, আল-আমিন হাওলাদার, সোহেল হাওলাদার, মো: সেন্টু হাওলাদার, বাদশা সেখ, সাইদ সেখসহ আরো চার থেকে পাঁচজন। তারা রামদা, চাপাতি, ছোড়া, লোহার রড দিয়ে হামলা চালিয়ে ওই পরিবারের পাঁচজনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এ সময় বাছেদ সেখের টিন ও কাঠ দিয়ে নির্মিত ঘরের বেড়া টেনে খুলে ফেলে দেয় তারা। বাড়িঘরে ভাঙচুর ও লুটপাটও চালায়। প্রত্যক্ষদর্শী বর্ণা আক্তার সাদিয়া বলেন,আমি আমার খালার বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলাম। সকালে আমার খালু তার জমিতে নতুন একটি ঘর নির্মাণ করিতেছিলেন। এ সময় সোনারং গ্রামের ১৫ থেকে ২০ জন চাপাতি, ছোড়া, লাঠি নিয়ে আমার খালুর বাড়িতে হামলা চালায়। আমার খালু ও খালা খালাত ভাই বোনদের এমনকি আমার মাকেও কুপিয়ে-পিটিয়ে জখম করে। আমার খালা-খালুর অবস্থা গুরুতর। তারা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।’ অপর প্রত্যক্ষদর্শী মো: আবু কালাম বলেন,আমার জীবনে এমন হামলা দেখিনি। বারবার চেষ্টা করেও হামলাকারীদের হাত থেকে ভূক্তভোগী পরিবারটিরকে রক্ষা করতে পারিনি। আমি একাধিক আঘাতের শিকার হয়েও চেষ্টা চালিয়ে যাই, তারপরেও তারা বৃদ্ধ স্বামী-স্ত্রীসহ একই পরিবারের পাঁচজনকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে। পরে তারা ঘণ্টাব্যাপী ওই বাড়িতে ভাঙচুর ও লুটপাট চালিয়েছে। টংঙ্গীবাড়ী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাজিব খান বলেন, এ ঘটনায় অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত চলছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।