ঢাকা ০৫:০১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুন্সীগঞ্জে ঋণের ভার সইতে না পেরে ছেলে-মেয়েকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা

ওসমান গনি মুন্সীগঞ্জ থেকে।
  • আপডেট সময় : ১০:২৬:০২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ২৮ বার পড়া হয়েছে
সময়কাল এর সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে ছেলে-মেয়েকে বিষ খাইয়ে হত্যার পর গলায় দড়ি পেঁচিয়ে ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে মা।ঘটনাটি ঘটেছে জেলার সিরাজদিখান উপজেলার কেয়াইন ইউনিয়নের উত্তর ইসলামপুর গ্রামে।

সকাল ৯টার দিকে তাদের বসত ঘর থেকে একে একে মা,ছেলে ও মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।মৃতদের মরদেহ উদ্ধার করে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পেরেন করেছে সিরাজদিখান থানা পুলিশ।

আত্মহত্যা করা সালমা বেগম(৩৫) সৌদি প্রবাসী ওলি মিয়া স্ত্রী।এই দম্পতির মেয়ে ছাইমুনা আক্তার(৯) কেরানীগঞ্জের চর সোনাকান্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী।ছেলে তাওহী হোসেন (৭) একই বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র।

আত্মহত্যা করা সালমা বেগমের জা রোজিনা আক্তার জানান,সালমা ঋণগ্রস্ত ছিল।বিভিন্ন এনজিও থেকে সুদে টাকা নিয়ে ঋণের বোঝায় পিষ্ট ছিলেন তিনি।রবিবার সকাল ৯টার দিকে দুইজন এনজিওর লোক এসেছিল কিস্তি নেওয়ার জন্য।তবে তারা ঘরের দরজা বন্ধ পেয়ে ফিরে যায়।পরে জানালা ভেঙে দেখা যায় সালমা ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলছে আর বাচ্চা দুটি খাটের ওপর পড়ে আছে।পরে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে।

সিরাজদীখান থানার কর্মকর্তা (ওসি) মো:মুজাহিদুল ইসলাম জানান,প্রায় ৭ বছর আগে সালমা বেগমের স্বামী ওলি মিয়া ৮ লাখ টাকা ঋণ করে সৌদি আরব যান।সেই ঋণের টাকা দিনে দিনে বাড়তে থাকে।সেই ঋণের চাপ সইতে না পেরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করছি।মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

মুন্সীগঞ্জে ঋণের ভার সইতে না পেরে ছেলে-মেয়েকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা

আপডেট সময় : ১০:২৬:০২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে ছেলে-মেয়েকে বিষ খাইয়ে হত্যার পর গলায় দড়ি পেঁচিয়ে ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে মা।ঘটনাটি ঘটেছে জেলার সিরাজদিখান উপজেলার কেয়াইন ইউনিয়নের উত্তর ইসলামপুর গ্রামে।

সকাল ৯টার দিকে তাদের বসত ঘর থেকে একে একে মা,ছেলে ও মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।মৃতদের মরদেহ উদ্ধার করে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পেরেন করেছে সিরাজদিখান থানা পুলিশ।

আত্মহত্যা করা সালমা বেগম(৩৫) সৌদি প্রবাসী ওলি মিয়া স্ত্রী।এই দম্পতির মেয়ে ছাইমুনা আক্তার(৯) কেরানীগঞ্জের চর সোনাকান্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী।ছেলে তাওহী হোসেন (৭) একই বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র।

আত্মহত্যা করা সালমা বেগমের জা রোজিনা আক্তার জানান,সালমা ঋণগ্রস্ত ছিল।বিভিন্ন এনজিও থেকে সুদে টাকা নিয়ে ঋণের বোঝায় পিষ্ট ছিলেন তিনি।রবিবার সকাল ৯টার দিকে দুইজন এনজিওর লোক এসেছিল কিস্তি নেওয়ার জন্য।তবে তারা ঘরের দরজা বন্ধ পেয়ে ফিরে যায়।পরে জানালা ভেঙে দেখা যায় সালমা ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলছে আর বাচ্চা দুটি খাটের ওপর পড়ে আছে।পরে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে।

সিরাজদীখান থানার কর্মকর্তা (ওসি) মো:মুজাহিদুল ইসলাম জানান,প্রায় ৭ বছর আগে সালমা বেগমের স্বামী ওলি মিয়া ৮ লাখ টাকা ঋণ করে সৌদি আরব যান।সেই ঋণের টাকা দিনে দিনে বাড়তে থাকে।সেই ঋণের চাপ সইতে না পেরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করছি।মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে।