ঢাকা ০৪:২৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্বরূপকাঠির বলদিয়ায় বরাদ্দকৃত কম্বল নিয়ে টানাটানি

পিরোজপুর প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ০৬:২৯:৩৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ২৭ বার পড়া হয়েছে
সময়কাল এর সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

পিরোজপুর জেলার স্বরূপকাঠিতে এম পির বরাদ্দকৃত কম্বল নিয়ে টানাটানির অভিযোগ উঠেছে অত্র উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নে। গরীব ও অসহায় মানুষের শীত নিবারনের জন্য দেয়া কম্বল সরকারি নিয়ম অনুযায়ী তালিকা তৈরি করে তারপরে বিতরণ করার কথা থাকলেও তা করা হয়নি বলে জানা গেছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাংলাদেশ প্রেসক্লাব স্বরূপকাঠি উপজেলার সাংবাদিকবৃন্দ বলদিয়ার পঞ্চবপকী বাজারে ওএমএস ডিলার আঃ রহিমের গোডাউনে রাখার সন্ধান পায়। গোডাউন মালিক রহিম প্রথমে তার গোডাউনের দরজার খুলতে রাজি না হলেও জনগনের চাপে সত্যতা স্বীকার করতে বাধ্য হয় তার গোডাউনে কম্বল রাখা আছে। ওএসএম ডিলার আঃ রহিম বলেন, আমি বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান আঃ সাইদ ভাইয়ের কথায় এখানে রেখেছি। বলদিয়ার ইউপি চেয়ারম্যান আঃ সাইদ বলেন, উপজেলার চেয়ারম্যান সাহেব আমাকে দলিও নেতা কর্মীদের নিয়ে বিতরণ করতে বলেছেন, তিনি আরও বলেন উপজেলার চেয়ারম্যান আঃ হক সাহেব আমাকে চারজন লোকের নাম বলেছেন, তাদেরকে নিয়ে এই কম্বল বন্টন করতে হবে। মোট একশ কম্বল বরাদ্দ থাকলেও আমি পেয়েছি ৯২ টি। তাই ইউনিয়ন পরিষদের না রেখে অন্যত্র রাখা হয়েছে। উপজেলার চেয়ারম্যান আঃ হক বলেন, এটা জনগনের ট্যাক্সের টাকার, অসহায় ও গরীব মানুষের জন্য দেয়া হয়েছে। তাকে ইউনিয়ন পরিষদের গোডাউনে রাখা উচিত ছিল কিন্তু কি কারনে সে অন্যত্র রেখেছে তা আমি জানিনা। এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, বলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের গোডাউনে রাখা উচিত ছিল এবং ওখান থেকেই অসহায় ও গরীব মানুষের মধ্যে তালিকা তৈরি করে বন্টন করে দেয়া। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

স্বরূপকাঠির বলদিয়ায় বরাদ্দকৃত কম্বল নিয়ে টানাটানি

আপডেট সময় : ০৬:২৯:৩৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পিরোজপুর জেলার স্বরূপকাঠিতে এম পির বরাদ্দকৃত কম্বল নিয়ে টানাটানির অভিযোগ উঠেছে অত্র উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নে। গরীব ও অসহায় মানুষের শীত নিবারনের জন্য দেয়া কম্বল সরকারি নিয়ম অনুযায়ী তালিকা তৈরি করে তারপরে বিতরণ করার কথা থাকলেও তা করা হয়নি বলে জানা গেছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাংলাদেশ প্রেসক্লাব স্বরূপকাঠি উপজেলার সাংবাদিকবৃন্দ বলদিয়ার পঞ্চবপকী বাজারে ওএমএস ডিলার আঃ রহিমের গোডাউনে রাখার সন্ধান পায়। গোডাউন মালিক রহিম প্রথমে তার গোডাউনের দরজার খুলতে রাজি না হলেও জনগনের চাপে সত্যতা স্বীকার করতে বাধ্য হয় তার গোডাউনে কম্বল রাখা আছে। ওএসএম ডিলার আঃ রহিম বলেন, আমি বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান আঃ সাইদ ভাইয়ের কথায় এখানে রেখেছি। বলদিয়ার ইউপি চেয়ারম্যান আঃ সাইদ বলেন, উপজেলার চেয়ারম্যান সাহেব আমাকে দলিও নেতা কর্মীদের নিয়ে বিতরণ করতে বলেছেন, তিনি আরও বলেন উপজেলার চেয়ারম্যান আঃ হক সাহেব আমাকে চারজন লোকের নাম বলেছেন, তাদেরকে নিয়ে এই কম্বল বন্টন করতে হবে। মোট একশ কম্বল বরাদ্দ থাকলেও আমি পেয়েছি ৯২ টি। তাই ইউনিয়ন পরিষদের না রেখে অন্যত্র রাখা হয়েছে। উপজেলার চেয়ারম্যান আঃ হক বলেন, এটা জনগনের ট্যাক্সের টাকার, অসহায় ও গরীব মানুষের জন্য দেয়া হয়েছে। তাকে ইউনিয়ন পরিষদের গোডাউনে রাখা উচিত ছিল কিন্তু কি কারনে সে অন্যত্র রেখেছে তা আমি জানিনা। এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, বলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের গোডাউনে রাখা উচিত ছিল এবং ওখান থেকেই অসহায় ও গরীব মানুষের মধ্যে তালিকা তৈরি করে বন্টন করে দেয়া। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।